abul_hossain-shadhinbangla24

বাংলারশিক্ষা ন্যাশনাল ডেক্স:

ভারতের মর্যাদাপূর্ণ ‘বিদ্যাসাগর পুরস্কার-২০১৯’ পেলেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট শিক্ষা-উদ্যোক্তা, সমাজসেবী ও সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন। বাংলাদেশে শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদান ও নারী শিক্ষা প্রসারে বিশেষ অবদান রাখার জন্য তাকে এ পুরস্কার প্রদান করা হলো। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুরে বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবেকানন্দ সভাগৃহে এক অনুষ্ঠানে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। আবুল হোসেনের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যলয়ের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক রঞ্জন চক্রবর্তী।

এ সময় সেখানে উপস্থিত রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী, কলকাতার বাংলাদেশ উপদূতাবাসের ডেপুটি হাইকমিশনার তৌফিক হাসান, পশ্চিমবঙ্গের প্রখ্যাত লেখক ও কবি সুবোধ সরকার, ভারততত্ত্ববিদ নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ী, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ওমপ্রকাশ মিশ্রসহ বিশিষ্টরা।

সৈয়দ আবুল হোসেন জানান, এ পুরস্কার শিক্ষা প্রসার এবং সমাজকে সত্য ও সুন্দরের পথে এগিয়ে নিতে তাকে আরও উৎসাহিত করবে। বিদ্যাসাগর তার স্বপ্নের পুরুষ এবং আদর্শিক মানুষ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিদ্যাসাগরের ২০০তম জন্মবার্ষিকীতে তাঁর নামাঙ্কিত বিদ্যাসাগার পুরস্কার পাওয়া আমার কাছে অত্যন্ত গর্বের।’

উল্লেখ্য, শিক্ষা ও আর্থসামাজিক উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখার জন্য এর আগে সৈয়দ আবুল হোসেন শেরেবাংলা পদক, মোতাহার হোসেন পদক ও ড. ওয়াজেদ মিয়া আন্তর্জাতিক স্বর্ণপদক ও জাতীয় স্বীকৃতিসহ ২২টি পদক পেয়েছেন। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সার্বিক অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ আমেরিকার বায়োলজিক্যাল ইনস্টিটিউট তাকে ‘ম্যান অব দ্য মিলিনিয়াম’ পদকে ভূষিত করে। বাংলাদেশে শিক্ষা প্রসারে অবদানের জন্য কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় জাতীয় সংহতি সংসদ কর্তৃক ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’, অল ইন্ডিয়া রাইটার্স কনফারেন্স কর্তৃক ‘ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর পুরস্কার এবং শিক্ষা ও সমাজসেবারত্ন’ উপাধি এবং কলকাতা লৌকিক গবেষণা কেন্দ্র কর্তৃক সম্মাননা ও স্বর্ণপদক লাভ করেন।