press conference

বেলাল রিজভী, বাংলারশিক্ষা:

মাদারীপুর সদর উপজেলার এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার দাবি জানিয়েছে নির্যাতিতা ছাত্রীর মা। সোমবার সকালে মাদারীপুর জেলা সাংবাদিক কল্যাণ সমিতি কার্যালয়ে অভিযুক্তদের বিচার ও গ্রেপ্তার দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, গত ২৭ ডিসেম্বর বিকেলে ওই কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণের চেষ্টা করে একই এলাকার মামুন ফকির, শাকিল হাওলাদার, শাওন ঘোষ, সাইফুল খান ও মাজাহারুল ফকির। পরে জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-তে কল করলে ঘটনাস্থল থেকে মামুন ফকির, শাকিল হাওলাদার, শাওন ঘোষকে পুলিশ আটক করে। এ ঘটনায় মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করে নির্যাতিত কলেজ ছাত্রীর মা।

সেই মামলায় মামুন ফকির ও শাওন ঘোষকে জেলা-হাজতে পাঠানো হয়। তবে শাকিল হাওলাদার পুলিশ কনেস্টবল হওয়ায় পুলিশ তাকে ছেড়ে দেয় বলে দাবি মামলার বাদীর।

এদিকে মামলার আসামি পুলিশ কনস্টেবল শাকিলসহ অন্য আসামিরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় আতঙ্কে আছে নির্যাতিতা কলেজ ছাত্রীর পরিবার। পুলিশ কনস্টেবল শাকিল বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকিও দিচ্ছে বলে অভিযোগ।

নির্যাতিতা কলেজ ছাত্রীর মা জানান, মামুন ফকির ও শাওন ঘোষ ২০১৫ সালেও একবার আমার মেয়েকে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। সে ঘটনায় মামলা আদালতে চলমান রয়েছে। এরা দীর্ঘদিন থেকেই আমার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে আসছে। এদের কারণে অতিষ্ঠ হয়ে আমার মেয়েকে ঢাকার একটি কলেজে ভর্তি করেছিলাম। কিন্তু তাতেও রক্ষা হয়নি। আমি এর বিচার চাই। আমি দ্রুত পুলিশ কনস্টেবল শাকিলসহ সব আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাই।

মাদারীপুর সদর থানার ওসি সওগাতুল আলম বলেন, এই ঘটনায় দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।