প্রধান শিরোনাম »

Category: সাহিত্য

এ হৃদয়ে নেই তুমি

সুলেখা আক্তার শান্তাঃ ভালোবাসি দু’জন দু’জনকে। হঠাৎ একটা দমকা বাতাস এসে ভেঙ্গে দিল দুটি হৃদয়কে। এখন এ হৃদয় নেই তুমি। ভালোবাসা কি এতই ঠুনকো ছিল আমাদের দুটি হৃদয়কে করে দিল ছিন্ন। সব ভালোবাসাই হয় না পাওয়া। ভালোতো বেসেছিলে আমাকে তার অধিকার নিয়ে এটুকুই চাই তোমার কাছে। তোমার ভালোবাসার দীর্ঘশ্বাস থেকে মুক্ত করে দিও আমাকে। বাস্তব জীবনে চলার পথে, দুজনের জীবনে সঙ্গী হবে অন্য কেউ। জোনাকি আলোর মতো করে উঠবে জ্বলে, হৃদয়ে তীব্র ব্যথায় নাড়া দিবে স্মৃতি দাহন। গতিময় জীবনে চলতে গিয়ে একসময় দু’জনের হৃদয় থেকে সরে যাব দু’জন, এটাই যে বাস্তব জীবন। একাকীত্বতা সময় মনে করোনা আমায়। স্মৃতি গুলো...

Read More

অন্তরালের দিন

সুলেখা আক্তার শান্তা: রেল লাইনের কাছে এলে কেন যেন আমার এখান থেকে যেতে ইচ্ছা করে না। এখান কার গাছের পাতাগুলোর মৃদু হাওয়ায় মর্মর শব্দ কান পেতে শুনি আমি। বড় মায়া হয় এখানকার জন্য। আর মনে হয়, কে যেন আমাকে ডাকে রোহিত রোহিত বলে। এক অদৃশ্য ছায়া ঘিরে রাখে আমার। আজ আমার কুড়ানির কাজ অন্যদিনের চেয়ে ভালো হয়েছে। বোতল, শিশি, কাগজ কুড়িয়ে ভালোই পেয়েছি। নানি দেখলে খুব খুশি হবে। এখন যাই স্কুলে সময় হয়েছে। বাসায় এলাম বোতলের বস্তা নিয়া। স্কুলে যাওয়ার জন্য রেডি হই। নানিকে বলি, আজ আমার স্কুল থাইকা বাসায় আসতে দেরি হবে। কেনরে নানু ভাই? আজ আমার বন্ধু...

Read More

সূর্য উঠেছিল মেঘের আড়ালে

সুলেখা আক্তার শান্তা: সারাক্ষণ রূপচর্চা আড্ডা হৈ-হুল্লার মাঝে নিজেকে ব্যস্ত রাখে শারমিন। শারমিন নিজেকে নিয়ে এত ব্যস্ত থাকে। নিজের দুটি সন্তান আছে তার কখনোই তা মনে থাকেনা। টুটুল আর বুলবুল মায়ের কাছে আসলে শারমিন বিরক্ত স্বরে বলে, আমার কাছে আসছো কেন? যাও গিয়ে খেলো। মায়ের কাছে না থাকতে পারায়। এতে টুটুল আর বুলবুলের মন ভীষণ খারাপ হয়। টুটুল আর বুলবুল বাবা অফিস থেকে ফিরে এলে তারা নিজেদের মধ্যে ফিরে পায় প্রাণ। তারা দুজনেই বাবাকে বলে, বাবা তুমি আর অফিসে যাবে না। সাজেদ অফিসের ব্যাগ রেখে দুই হাত দিয়ে, দুই ছেলেকে জড়িয়ে ধরে বলে, ঠিক আছে বাবা যাব না। টুটুল...

Read More

কবিতা: ক্ষুধা

সুলেখা আক্তার শান্তা: ভয়ানক সংকটের মাঝে কেটে যাচ্ছে দিন। ক্ষুধার জ্বালায় পারছিনা সইতে ভাত দাও, তোমরা আমাকে। যদি বলো ঘরে থাকতে, অনাহারে মারা যাবো ধুকে ধুকে। দৈনন্দিন কাজ করে খাবার জোগাতে হয় যাদের তারা কি করে থাকবে বসে ঘরে। বুঝিনা দিন রাতের তফাৎ ক্ষুধায় কেড়ে নিয়েছে, সব বোধ অনুভূতি। বৃদ্ধ বাবা-মা শিশুও কাঁদে ক্ষুধায় জ্বালায় নিঃশব্দ চিৎকারে বলে, ভাত দে ভাত দে, এ জ্বালা নিজেকে কি করে দেই সামাল। নিত্যদিনের অভাব, শুধু নাই আর নাই, পাবো কি এর পরিত্রান। কবে আসবে সুদিন তার অপেক্ষায় বুক ভরে নিতে চাই নিঃশ্বাস। এ দুর্দিনে সদয় হও তোমরা, যারা দু’ মুঠো ভাত জোগাড়...

Read More

কবিতা: প্রার্থনা

–সুলেখা আক্তার শান্তা: আল্লাহ প্রার্থনা করি তোমার কাছে। কেমন এ করোনাভাইরাস এলো দুনিয়াতে ছোবল মেরে কেড়ে নেয় প্রাণ। করোনা কারণে তোলপাড় পৃথিবী জুড়ে। হে দয়াময় আল্লাহ দয়া করো তুমি। ক্ষুধার জ্বালায় মানুষ করে আর্তনাদ। সমস্ত কাজকর্ম ছেড়ে, হাত-পা গুটিয়ে বসে আছি ঘরে। হে রাব্বুল আলামিন প্রার্থনা করি তোমার কাছে  ক্ষমা করে দাও এই পাপী বান্দাদের। তোমার বন্ধু নবী-রাসুলের কথা ভেবে করোনাভাইরাসের বালা মুসিবত তুলে নাও আল্লাহ দুনিয়া থেকে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে পারি না তাকে স্পর্শ করতে। হে পাক পরোয়ারদিগার দয়া করো তুমি। আপন জনের মৃত্যুতে পারি না শরিক হতে। যে রোগের মৃত্যু হলে হয় না গোসল জানাজা। ভয়ংকর...

Read More
  • 1
  • 2