বাংলারশিক্ষা:
এমপিও’ভুক্তির দাবিতে বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফোরাম মাদারীপুর জেলা শাখা সংবাদ সম্মেলন করেছে। মঙ্গলবার (৭ জুলাই) মাদারীপুর স্থানীয় দৈনিক মাদারীপুর সংবাদ পত্রিকা কার্যালয়ে সকাল ১০টায় সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, দীর্ঘ ২৮ বছর যাবৎ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকরা মানবেতর জীবন-যাপন করছে। এছাড়া করোনা পরিস্থিতির কারণে কলেজগুলোতে যে সামান্য সম্মানীও প্রদান করা হতো তাও বন্ধ প্রায় ৫ মাস যাবৎ। জেলার ৬টি কলেজের প্রায় শতাধিক শিক্ষক এখনও মানবেতর জীবন-যাপন করছেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সরকারের জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০ এর উচ্চ শিক্ষা ও অধ্যায়-০৮, কৌশল-০৬-এ বলা হয়েছে- পর্যায়ক্রমে ডিগ্রী পাশ কোর্স তুলে ০৪ বছর মেয়াদী ডিগ্রী অনার্স (সম্মান) কোর্স চালু করা হবে। এটা যদি সরকারের শিক্ষানীতি হয়, তাহলে অনার্স কোর্সে শিক্ষকদেরকে কেন জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালার বাইরে রাখা হবে? কেন এমপিওভুক্ত করা হবে না? একই নিয়ম ও পদ্ধতিতে ডিগ্রী পাশ কোর্স তৃতীয় পদের শিক্ষকগণ এমপিওভুক্ত হতে পারেন। একই যোগ্যতায়, একই প্রক্রিয়ায় নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে জাতীয়করণের আওতায় ৩২০টি কলেজের অধিকাংশ ডিগ্রী কলেজের অনার্স কোর্সের শিক্ষকগণ আত্মীকরণের আওতায় প্রক্রিয়াধীন। তাহলে আমাদের অপরাধ কি? কেন আমরা এমপিওভুক্ত হতে পারব না? একই কলেজে কেহ এমপিওভুক্ত এবং কেহ ২৮ বছরের ননএমপিওভুক্ত। একই বিষয়ে এই দ্বৈতনীতির অবসান চাই।

সংবাদ সম্মেলনে দাবি জানানো হয়, অনার্স-মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগপ্রাপ্ত ননএমওি শিক্ষকদেরকে জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮’তে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। ৫ হাজার ননএমপিও শিক্ষকদেরকে ১৪৬ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়ে অতি দ্রুত অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকদেরকে দ্রুত এমপিওভুক্ত করা হোক। এমপিওভুক্তি প্রদানের মাধ্যমে দীর্ঘ ২৮ বছরের বঞ্চনার অবসান করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টিআকর্ষণ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফোরাম মাদারীপুর জেলা শাখার সভাপতি আব্দুল্লাল আল মাহমুদ। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজী কামরুজ্জামান, বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফোরাম মাদারীপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. আজিজুল ইসলাম, সদস্য ঝন্টু রঞ্জন মন্ডল, আরিফুর রহমান প্রমূখ।