বাংলারশিক্ষা:
১৬টি দেশে অভিবাসন ব্যয় নির্ধারণ করেছে সরকার। ১৬টি দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ সরকারি অভিবাসন ব্যয় ১ লাখ ৬৬ হাজার ৭৮০ টাকা। মাদারীপুরে বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক উপজেলা পর্যায় প্রচার, প্রেসব্রিফিং ও সেমিনারে এ তথ্য জানানো হয়। মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) মাদারীপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি ব্যুরোর ব্যবস্থাপনায় সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।

বৈধ পথে বিদেশে গমন ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জনসাধারণকে সচেতন করা ও অবহিত করার লক্ষ্যে ব্যাপক প্রচারের উদ্দেশ্যে কর্মশালাটি আয়োজন করা হয়। কমর্শালায় ১৬টি দেশে সরকার প্রদত্ত অভিবাসনের ব্যয়ের বিষয়ে জানানো হয়। কর্মশালার প্রদত্ত তথ্য অনুযায়ী সরকার ১৬টি দেশে অভিবাসন ব্যয় নির্ধারণ করেছে। এগুলোর মধ্যে মালয়েশিয়ায় নির্মাণ/কারখানা শ্রমিকের ব্যয় ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং কৃষি শ্রমিকের অভিবাসন ব্যয় ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা নির্ধারণ করেছে বলে জানানো হয়।

এছাড়া লিবিয়া ১ লাখ ৪৫ হাজার ৭৮০ টাকা, বাহরাইন ৯৭ হাজার ৭৮০ টাকা, সংযুক্ত আরব আমিরাত ১ লাখ ৭ হাজার ৭৮০ টাকা, কুয়েত ১ লাখ ৬ হাজার ৭৮০ টাকা, সালতানাত আব ওমান ১ লাখ ৭৮০ টাকা, ইরাক ১ লাখ ২৯ হাজার ৫৪০ টাকা, কাতার ১ লাখ ৭৮০ টাকা, জর্ডান ১ লাখ ৭৮০ টাকা, মিশর ১ লাখ ৮০ টাকা, রাশিয়া ১ লাখ ৬৬ হাজার ৬৪০ টাকা, মালদ্বীপ ১ লাখ ১৫ হাজার ৭৮০ টাকা, ব্রুনাই দারুসসালাম ১ লাখ ২০ হাজার ৭৮০ টাকা, লেবানন ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৮০ টাকা, সৌদিআরব ১ লাখ ৬৫ হাজার এবং সিঙ্গাপুর ১ লাখ ৪১ হাজার ৪৭০ টাকা সরকার অভিবাসন ব্যয় বলে কর্মশালায় জানানো হয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজহারুল ইসলামের সভাপতিত্বে কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর পৌরসভার মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুদ্দিন গিয়াস, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন পারভীন, মাদারীপুর কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান ও মাদারীপুর জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি ব্যুরো সহকারী পরিচালক ষষ্ঠপদ রায় প্রমূখ।

কর্মশালায় সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।