NTRCA-Job-Circular-2018 copyবাংলারশিক্ষা ন্যাশনাল ডেক্স:
বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক পদে সুপারিশ পাওয়া প্রার্থীদের পুলিশ ভেরিফিকেশন শুরু হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা সদর ও জামালগঞ্জ উপজেলার প্রার্থীদের পুলিশ ভেরিফিকেশ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রার্থীরা।

গতকাল রোববার রাতে সুনামগঞ্জ সদর থানার ওসি (তদন্ত) এজাজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ওসি জানান, আমরা প্রার্থীদের পুলিশ ভেরিফিকেশন শুরু করেছি। প্রার্থীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য যাচাই করা হচ্ছে।

দুই উপজেলার প্রার্থীরা জানিয়েছেন, পুলিশ ভেরিফিকেশন শুরু হয়েছে। প্রার্থীদের ও বাবা-মায়ের এনআইডি কার্ডের ফটোকপি, সব সার্টিফিকেটের মেইন কপি দেখে তার ফটোকপি, স্কুল কলেজের প্রত্যয়ন, নাগারিকত্ব সনদ ও বিবাহিন না অবিবাহিত সে প্রত্যয়ন জমা নিয়েছেন। পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য টাকা নেওয়া হচ্ছে না।

এদিকে এনটিআরসিএ কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রার্থীদের পুলিশ ভেরিফিকেশ ফরমগুলো বিভিন্ন বিভাগে পাঠাচ্ছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে বেশিরভাগ ফরম পাঠানো হলেও রাজশাহী বিভাগের কিছু জেলার ফরম এখনো পাঠানো হয়নি। শিগগিরই তা পাঠানো হবে।

জানা গেছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের নিরাপত্তা শাখা পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাজটি করছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নিরাপত্তা-৩ শাখার উপসচিব সাগরিকা নাসরিনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি।

জানা গেছে, শিক্ষক পদে নতুন সুপারিশ পাওয়া প্রায় ৬ হাজার প্রার্থী পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য ফরম পূরণ করে পাঠাননি। ৩৮ হাজার ২৮৬ জন নিবন্ধিত প্রার্থীর ফরম পূরণ করে পাঠানোর নির্দেশনা দেওয়া হলেও ৬ হাজার প্রার্থীর ফরম পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন এনটিআরসিএর কর্মকর্তারা। ৩২ হাজার ২৮৩ জন প্রার্থী ফরম পাঠিয়েছে এনটিআরসিএতে।

এদিকে নিয়োগ সুপারিশের জন্য নির্বাচিত হওয়ার তিনমাস পরেও চূড়ান্ত সুপারিশ না পেয়ে হতাশ প্রার্থীরা। তারা দ্রুত শিক্ষক পদে যোগদান করার দাবি জানিয়েছেন। চাকরি পাওয়ার পরেও যোগদানে অহেতুক দেরি হওয়ায় অনেক প্রার্থীই হতাশ। তারা বলছেন, দ্রুত যোগদানের ব্যবস্থা করা হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোয় শিক্ষকসংকট কিছুটা কমবে।

করোনায় দেড় বছরের বেশি সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের ক্ষতি হয়েছে সবচেয়ে বেশি। স্কুল খোলার পর শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পোষাতে দ্রুত শিক্ষক নিয়োগের ব্যবস্থা করেছিল সরকার। আবেদন গ্রহণের পর প্রার্থীরা গত ১৫ জুলাই প্রাথমিক সুপারিশও পেয়েছেন ৩৮ হাজার ২৮৬ জন প্রার্থী। কিন্তু শিক্ষক পদে যোগদানের আগে প্রার্থীদের পুলিশ ভেরিফিকেশন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ ও প্রার্থীরা।
সূত্র: দৈনিক শিক্ষাডটকম